সেরা ১০টি বাংলা কন্টেন্ট রাইটিং আইডিয়া Bangla content writing idea

সেরা ১০টি বাংলা কন্টেন্ট রাইটিং আইডিয়া

আমাদের যাদের ইউটিউব চ্যানেল অথবা ফেসবুক পেজ রয়েছে তাদের প্রতিনিয়ত কন্টেন্ট এর প্রয়োজন হয়। সেটা হতে পারে ভিডিও কন্টেন্ট বা আর্টিকেল কন্টেন্ট। তো আজকের আর্টিকেলে দেখানো হবে কিভাবে বাংলা কন্টেন্ট রাইটিং করতে হয়। যারা নতুন ইউটিউব চ্যানেল অথবা ওয়েবসাইটে কাজ শুরু করেন তাদের কিছুদিন পরেই কন্টেন্ট এর অভাব হয়। আপনারা খুঁজে পান না কোন বিষয়ে লেখালেখি করবেন। তো আজকে এমন দশটি বাংলা কন্টেন্ট রাইটিং আইডিয়া সম্পর্কে বলা হবে যা বর্তমান সময়ে অনেক জনপ্রিয় এবং সেই বিষয়ে লেখার কোন অভাব হবে না। তো চলুন জেনে নেই আজকের সেরা দশটি কন্টেন্ট রাইটিং আইডিয়া সম্পর্কে

ব্লগের জন্য সেরা ১০টি কন্টেন্ট রাইটিং আইডিয়া

 সেরা ১০টি কন্টেন্ট রাইটিং আইডিয়া

১. শিক্ষা (Education):

আপনি যদি শিক্ষা বিষয়ে ভালো জানেন তাহলে বিভিন্ন ক্লাসের বিভিন্ন সমস্যার সমাধান করতে পারেন। মনে করেন কেউ বইয়ের কোনো পড়াটি বুঝলো না তখন সে অবশ্যই গুগল অথবা ইউটিউবে সেই পড়ার বিষয়টি লিখে সার্চ করবে। তখন তার সামনে সেই সমাধান চলে আসবে। তেমনি আপনি বইয়ের বিভিন্ন সমস্যার সমাধান ইত্যাদি বিষয় নিয়ে লেখালেখি বা ভিডিও তৈরি করতে পারেন। এতে করে আপনার কন্টেন্ট এর অভাব হবে না। আনলিমিটেড লিখতে পারবেন। Education বিষয়ে লিখলে আপনি যেকোনো একটি সাবজেক্ট নিয়ে লিখতে পারেন। যেমন: বাংলা, ইংরেজি, গণিত। অথবা সকল সাবজেক্ট নিয়েও লেখালেখি করতে পারেন। এই বিষয়ে লিখতে গেলে প্রথমে আপনাকে খুঁজে বের করতে হবে বইয়ের কোন বিষয়গুলো নিয়ে মানুষ গুগল বা ইউটিউবে সার্চ করে। একটি গুরুত্বপূর্ণ টিপস হচ্ছে আপনি যেকোনো একটি শ্রেণীর বিষয় নিয়ে লিখতে পারেন। এতে করে সেই শ্রেণীর ছাত্র ছাত্রীরা আপনার ওয়েবসাইট বা ইউটিউব চ্যানেলটি নিয়মিত ভিজিট করবে।

২. স্বাস্থ্য টিপস্ (Health Tips):

অনেক সময় আমরা স্বাস্থ্য বিষয়ক বিভিন্ন সমস্যার সমাধান নিয়ে গুগলে সার্চ করে থাকি। যেমন: কারো দাঁত ব্যথা করছে। তখন সে ডাক্তারের কাছে না গিয়ে অনেক সময় গুগলে সার্চ করে থাকে দাঁত ব্যথার সমস্যা সমাধান লিখে এবং তার সামনে বিভিন্ন আর্টিকেল শো করে। আপনিও স্বাস্থ্য বিষয়ক বিভিন্ন টিপস নিয়ে লেখালেখি করতে পারেন। স্বাস্থ্য বিষয়ক টিপস নিয়ে গুগলে প্রচুর পরিমাণ সার্চ করা হয়ে থাকে। তো এই বিষয় নিয়ে লিখলে আপনি প্রচুর পরিমান ভিজিটর পাবেন। তবে স্বাস্থ্য বিষয়ক টিপস নিয়ে লেখালেখি করার জন্য আগে আপনার সেই বিষয়টা ভালো করে জানতে হবে। এই বিষয়ে ভুল টিপস দিলে আপনার ইউটিউব চ্যানেল অথবা ওয়েব সাইট এর সমস্যা হবে। কারণ এই বিষয়টিতে গুগল অনেক গুরুত্ব দিয়ে থাকে।

৩. প্রযুক্তি (Technology):

বর্তমান পুরো বিষয়টাই টেকনোলজির উপর নির্ভরশীল। টেকনোলজি আমাদের জীবন যাত্রার মানকে অনেক উন্নত করে ফেলেছে। আমরা সকালে ঘুম থেকে উঠে মোবাইল ফোন ব্যবহার করি বা বিভিন্ন ধরনের জিনিস ব্যবহার করে থাকি। যেমন: সকালে ঘুম থেকে উঠে শরীরচর্চার জন্য বিভিন্ন ধরনের যন্ত্রপাতির ব্যবহার করে থাকি। আবার সারাদিন বিভিন্ন কাজে টেকনোলজি ব্যবহার করে থাকি। তো আপনিও টেকনোলজি বিষয় নিয়ে ইংরেজিতে লেখালেখি শুরু করে দিতে পারেন। তবে বাংলাতেও লেখালেখি শুরু করতে পারেন। বাংলাতে টেকনোলজি বিষয়ক সম্পর্কে লেখার জন্য বাংলাদেশের সেরা 10 থেকে 15 টি টেকনোলজি সাইট ভিজিট করতে পারেন এবং দেখতে পারেন তারা কি বিষয় নিয়ে প্রতিনিয়ত লেখালেখি করছে এবং তাদের কাছ থেকে বিভিন্ন আইডিয়া সংগ্রহ করা মাধ্যমে আপনি নিজেও লিখতে পারেন।

৪. বায়োগ্রাফি (Biography):

আগে শুধুমাত্র ছবির নায়ক-নায়িকাদের কে সেলিব্রিটি বলা হত। বর্তমানে ইউটিউব, টিকটক, ফেসবুকে যাদের ফলোয়ার বেশি তাদেরকেও সেলিব্রিটি বলা হয়। তো আপনি তাদের জীবন ইতিহাস নিয়ে লেখালেখি করতে পারেন। এটাই হচ্ছে বায়োগ্রাফি। এই বিষয়ে লেখার জন্য আপনাকে প্রচুর পরিমাণ রিসার্চ করতে হবে। বায়োগ্রাফি বিষয় নিয়ে লেখার জন্য গুরুত্বপূর্ণ টিপস হচ্ছে বর্তমানে যারা ফেসবুক বা টিকটকে ভাইরাল হয় তাদের নিয়ে লেখা। কারণ তাদের বিষয়ে মানুষ জানতে বেশি সার্চ করে থাকে। পুরনোদের বিষয়ে মানুষ আগেই জেনে যায়। তবে যারা নতুন ভাইরাল হয় তাদের বিষয়ে মানুষের জানার আগ্রহ বেশি থাকে। তাই যারা নতুন ভাইরাল হচ্ছে তাদের বিষয় নিয়ে লেখালেখি করেন।

৫. কিভাবে (How To):

আপনি How To বিষয় নিয়েও লেখতে পারেন। মানে (কিভাবে বা কি করে ) এসব লেখে আমরা গুগলে / ইউটিউবে সার্চ করে থাকি। এটাই হচ্ছে How To কনটেন্ট। তো আপনিও এই বিষয়ে লেখালেখি শুরু করতে পারেন। এ বিষয়ে লেখার জন্য আপনাকে ভালো করে কিওয়ার্ড রিসার্চ করে নিতে হবে।

৭. ঘটনাবলী (Event Blogging):

ইভেন্ট ব্লগিং একটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয়। এই বিষয় নিয়ে ভালো লিখার জন্য ইউটিউব থেকে বিভিন্ন ভিডিও দেখে নিতে পারেন।

৮: রিভিউ (Review):

আপনি জনপ্রিয় মুভিগুলোর রিভিউ করতে পারেন। বিভিন্ন মুভি রিভিউ সম্পর্কে মানুষ জানতে চায়। তবে মুভি ডাউনলোড সাইট না বানানোই ভালো। কারণ গুগল অ্যাড*সেন্স এটা এলাউ করে না। আপনাকে মুভির বিভিন্ন বিষয় নিয়ে রিভিউ করতে হবে। মুভি রিভিউ নিয়ে গুগল থেকে বেশি ইউটিউবে সার্চ করা হয়ে থাকে। তাই মুভি রিভিউ নিয়ে একটি ইউটিউব চ্যানেল তৈরি করতে পারেন।

৯. সংবাদ (News/ Trending Topic):

নিউজ হচ্ছে একটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয়। আপনি নিউজ নিয়েও কাজ করতে পারেন এবং পাশাপাশি Trending Topic এর নিউজগুলো নিয়েও কাজ করতে পারেন। ট্রেন্ডিং টপিক নিয়ে গুগলে সবচেয়ে বেশি সার্চ করা হয়। আপনিও কোন না কোন সময় ট্রেন্ডিং টপিক নিয়ে সার্চ করছেন। যেমন বর্তমান সময়ের সবচেয়ে জনপ্রিয় ট্রেন্ডিং টপিক হচ্ছে করোনা ভাইরাস। আপনি করোনা ভাইরাস এর বিভিন্ন আপডেট  ইত্যাদি বিষয় নিয়ে কখনও না কখনও গুগল বা ইউটিউবে সার্চ করেছেন। ট্রেন্ডিং টপিক নিয়ে কাজ করলে তারাতাড়ি সফল হওয়া যায় ।

১০. ভ্রমন (Travel):

মনে করেন আপনি কোথাও বেড়াতে বা ঘুরতে যাবেন। তখন সেই জায়গাটির খুঁটিনাটি সম্পর্কে আপনার জানার ইচ্ছা হবে। তখন সেই বিষয়টা লিখে আপনি গুগল অথবা ইউটিউবে সার্চ করে বিভিন্ন আর্টিকেল অথবা ভিডিও দেখবেন। তেমনি আপনিও ভ্রমণ বিষয়ে বিভিন্ন আর্টিকেল লেখালেখি শুরু করতে পারেন। অথবা বিভিন্ন দর্শনীয় জায়গায় গিয়ে ভিডিও আকারে রিভিউ করতে পারেন এবং সেই জায়গাটির খুটিনাটি কিছু বিষয় নিয়ে লেখালেখিও করতে পারেন।

তো বন্ধুরা এই ছিল আজকের সেরা বাংলা কন্টেন্ট রাইটিং আইডিয়া। আশা করি এই আইডিয়া গুলো আপনার পছন্দ হয়েছে। এছাড়া আরো অনেক বাংলা কন্টেন্ট রাইটিং আইডিয়া রয়েছে। তবে আমার দেখা মতে এগুলোই সবচেয়ে ভালো। কারণ এগুলোতে অনেক ট্রাফিক পাওয়া যায় এবং এই বিষয়গুলো নিয়ে লেখার অভাব হয় না।

Next Post Previous Post
No Comment
Add Comment
comment url